মারামারি ঘটনায় চমেকে ৩১ ছাত্র বহিষ্কার, ২৭ নভেম্বর খুলছে কলেজ

ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মারামারির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে (চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে) চমেকে ৩১ ছাত্র বহিষ্কার। এই ৩১ জন ছাত্রকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার করা হয়েছে। একই সঙ্গে ২৭ নভেম্বর কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গত দুই বছরে একাধিক মারামারির ঘটনাসহ শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ বিভিন্ন বর্ষের এমবিবিএস ছাত্রদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মেয়াদে এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। চমেকে ৩১ ছাত্র বহিষ্কার মধ্যে ছাত্রলীগের বিবদমান দুই পক্ষের নেতা-কর্মী রয়েছেন।

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে নয়টায় অধ্যক্ষ সাহেনা আক্তারের সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় পাঁচ ঘণ্টা ধরে এ সভা চলে। একাডেমিক কাউন্সিলের এক সদস্য ৩১ জনকে বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর মধ্যে ২৩ জন এমবিবিএস বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী এবং ৮ জন বিডিএস বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী।

চমেকের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৯ ও ৩০ অক্টোবরের সর্বশেষ মারামারি এবং এর আগের বিভিন্ন সময়ে সংঘাতের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৩১ জনের বিরুদ্ধে এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। আগের মারামারির ঘটনার দুটি তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয় বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

সর্বশেষ গত মাসে সংঘটিত ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মারামারির ঘটনায় গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গতকাল সোমবার অধ্যক্ষ বরাবর প্রতিবেদন দেয়। এরপর আজ একাডেমিক কাউন্সিলের সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আগের দুটি তদন্ত প্রতিবেদনও পর্যালোচনা করা হয়। তদন্ত প্রতিবেদনগুলোতে যাঁদের নাম বারবার এসেছে, তাঁদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয় বলে জানা গেছে।

চমেকে ৩১ ছাত্র বহিষ্কার হওয়া শিক্ষার্থীরা আগামী ছয় মাসের মধ্যে নিজেদের নির্দোষ প্রমাণের জন্য কোনো আবেদন করতে পারবেন না বলেও সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

কিউআইএসআই গুরুকুল সাইটটি ব্যবহার করায় আপনাকে ধন্যবাদ। আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে “যোগাযোগ” আর্টিকেলটি দেখুন, যোগাযোগের বিস্তারিত দেয়া আছে।

মন্তব্য করুন